বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
বৃদ্ধাশ্রম’ নিয়ে বাংলাদেশে প্রথমবারের মত র‌্যাপ গান নির্মাণ করছেন তরুণ নির্মাতা জাহিদ হাসান রাতুল প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগে মহিলা কাউন্সিলর সৈয়দা রোকসানা ইসলাম চামেলীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন স্বপ্নধরার চোখধাঁধানো সাইনবোর্ডে প্রতারণা! শেরপুরের শ্রীবরদীর নির্যাতিত শিশু গৃহকর্মী সাদিয়ার বাড়িতে এখনও চলছে শোকের মাতম : খুনির ফাঁসি দাবী এলাকাবাসীর হাটহাজারীতে চোরাই পাচারকৃত চিড়াই কাঠ জব্দ সুমন খানের বারুদে বোলিং, ১৭৩ রানেই আটকে গেল শান্তর দল মাস্ক না পরলে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সেবা নয় অন্যদিগন্ত এর সম্পাদককে হামলা মামলার হুমকি থানায় জিডি বানিয়াচংয়ে প্রেমিকার লাশ ফেলে পালিয়ে যাবার সময় ঘাতক প্রেমিক আটক দুঃসময়ে কারামুক্ত করতে এগিয়ে আসেন রফিক-উল হক : প্রধানমন্ত্রী

কুমিল্লায় মাদকের গডফাদার “খোকন” এখনো পুলিশের ধরা ছোয়ার বাইরে

কুমিল্লা প্রতিনিধি ।।

কুমিল্লা নগরীর মাদক ব্যবসার অন্যতম মাদক ব্যবসায়ী দক্ষিণ চর্থা (থিরাপুকুর পাড়) ভেন্ডার গলির খোকন মিয়া (৫২)। বছর তিন এক আগে তাহার মাটির ঘড় ছাড়া কোন কিছুই ছিল না। খোকন মিয়ার পৈত্রিক বাড়ি চাঁদপুর জেলায় শৈশব কাল কাটালেও কুমিল্লা শহরের চর্থার এসে প্রথমে রিক্সা ও পরে মাইক্রো গাড়ির চালক হিসেবে জীবিকা নির্বাহ করতো। বেশ কয়েক বছর মাইক্রো চালানোর পর খোকন মিয়া (৫২) কুমিল্লা’র বিভিন্ন থানা পুলিশের এ,এসআই ও এসআইদের সাথে সু-সর্ম্পক গড়ে তোলে পুলিশের সোর্স হিসেবে পরিচিত লাভ করেন। যার ফলে কুমিল্লা নগরীর দক্ষিণ চর্থা থিরা পুকুর পাড় এলাকার মানুষ খোকনকে মাদক ব্যবসায়ী ও পুলিশের সোর্স হিসেবে চিনে।

এলাকাবাসীর তথ্য মতে জানা যায়- বিগত ০৩/০৯/২০১২ইং কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের কর্তৃক ৯৯৯৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ খোকন মিয়াকে হাতে নাতে ধরে ফেললেও সু-কৌশলে মাদক বিক্রেতা খোকন মিয়া (৫২) পুলিশের হাত থেকে রক্ষা পেয়ে যায়। তৎকালীন মাদক বিক্রেতা খোকন মিয়া কিছু দিন কারাভোগ করার পর কয়েকদিন ভালো ভাবে দিন কাটলেও পরবর্তী দিন হতে অধ্যবধি পর্যন্ত মাদক বিক্রেতার অন্যতম গডফাদার হিসেবে কুমিল্লা নগরীর মানুষের কাছে পরিচিতি লাভ করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়- মাদক ব্যবসায়ী খোকন মিয়া (৫২) গত ০৮/০৫/২০২০ইং তারিখে স্থানীয় এক ব্যক্তির বাসায় ১০,০০০ (দশ হাজার) পিছ ইয়াবা নিয়ে আসে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঔ ব্যক্তির ঘরে মাদক রাখতে নিষেধ করলেও খোকন হুমকি দিয়া বলে এগুলো পুলিশের ইয়াবা। গননা শেষ করে রাতেই পার্টির বাসায় পৌছে দিবো। পরে ইয়াবা গননা শেষে মোবাইল ফোনে বলতে ওই লোক শোনে স্যার এখানে ১০ হাজার পিচ ইয়াবা আছে। মাদক বিক্রেতার কথোপকথন কৌশলে উক্ত ব্যক্তি মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারন করে। যার নুন আনতে পান্তা ফুড়াতো সেই পুলিশের সোর্স মাদক বিক্রেতা খোকন এখন নিজে জমি ক্রয়ে করে এসি নিয়ন্ত্রিত ৪তলা বিলাস বহুল বিল্ডিং নির্মান করে নারীদের নিয়ে আমোদ ফূর্তিও করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিলাস বহুল বাড়ি ছাড়াও মাদক বিক্রেতা খোকনের রয়েছে বিভিন্ন রংয়ের প্রাইভেটকার। পুলিশের সোর্সের কাজের ফাঁকে বিভিন্ন সময় ভিআইপিদের ইয়াবা পাঁচার করে খোকনের গাড়ি দিয়ে।

কুমিল্লা নগরীরর থিরাপুকুর পাড় এলাকাবাসীর দাবি স্থানীয় প্রশাসন মাদক বিক্রেতা খোকনের বিষয়টি আমলে নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করিলে বন্ধ হবে মাদক বিক্রেতা খোকনের মাদক ব্যবসা। রক্ষা পাবে কুমিল্লা নগরীর মাদকসেবীদের প্রাণ। জানা যায় যে, মাদক ব্যবসায়ী খোকন একাধিক গোপন নাম্বার হতে মাদক ব্যবসার কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY It Host Seba Mobile: 01625324144
Shares