সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৯ পূর্বাহ্ন

ঝিনাইদহে ধানের বীজ ক্রয় করে প্রতারিত কৃষক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ।।

ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ডু উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের হাকিমপুর গ্রামের কৃষক জনাব আলী, আজিজার মন্ডল, আতিয়ার রহমান, নুজির আলী খাঁ, সজল হোসেন, আকাশ মিয়া, লিমন হোসেন নামের ৭ জন কৃষক চলতি মৌসুমে ধান রোপণের উদ্দেশে ঝিনাইদহ শহরের অগ্নিবীণা সড়কের শহিদ বীজ ভান্ডার থেকে ধানের বীজ ক্রয় করে।

বীজ ক্রয়ের পর বীজ তলায় স্বাভাবিক চারা গজায়। কিন্ত বিপত্তি দেখা দেয় ধানের চারা গাছ জমিতে রোপণের পর। চারা রোপণের এক সপ্তাহ পরে সদ্য রোপণ কৃত চারার ধানের শীষ গজাতে থাকে। এতে ফলন বিপর্যয়ের আশংকা করে ঐ কৃষক গন জেলা তথ্য অফিসারের সহযোগিতায় ক্ষতি পুরন চেয়ে জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ করে।

জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে সহকারী পরিচালক সুচন্দন মন্ডল জানান, শহরের অগ্নিবীণা সড়কের শহিদ বীজ ভান্ডার হতে চলতি মৌসুমে আবাদের জন্য স্বর্ণা ধানের বীজ ক্রয় করেন ওই ৭ জন কৃষক। বীজতলায় বীজ বপনের পর স্বাভাবিকভাবেই চারা গজায়। কিন্তু বীজতলা হতে চারা তুলে জমিতে রোপন করার কয়েকদিন পর স্বাভাবিক বৃদ্ধির পরিবর্তে চারা হতে শীষ গজাতে শুরু করে। এতে ফলন বিপর্যয়ের আশংকা করে তার। বিষয়টি নিয়ে গত ১৮ আগস্ট জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযোগ করেন তারা। শহিদ বীজ ভান্ডার সিলেট স্বর্ণা নামের জাত বলে বিক্রি করে। অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মতামত গ্রহণ করার পর জাতটি অবৈধ বলে বিবেচিত হয়। পরে অভিযোগ শুনানী ও সত্যতা প্রমাণ পাওয়া যায়।

এসময় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকেরা বিঘা প্রতি ৯ হাজার টাকা ক্ষতিপুরণ দাবী করে। পরবর্তীতে অভিযোগ মিমাংসার মাধ্যমে ৭ জন কৃষকের ২৫ বিঘা জমির জন্য ২ লাখ ২৯ হাজার ৫’শ টাকা ক্ষতিপুরণ দেয় শহিদ বীজ ভান্ডার।

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY It Host Seba