সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:২১ পূর্বাহ্ন

নওগাঁর মান্দায় গনধর্ষন মামলা তুলে নিতে বাদীর বাড়ীতে হামলা, লুটপাট, শ্লীলতাহানী

হারুনুর রশীদ (নওগাঁ) প্রতিনিধি ।।

নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলার ভ্যালাইন ইউনিয়নে গনধর্ষন মামলা তুলে নিতে পলাতক আসামীর আত্নীয়রা, আব্দুল মজিদের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে তার বিবাহযোগ্য মেয়েকে শ্লীলতা হানী ও মারপিট এবং ঘরের দরজা ও সাববক্স ভেঙ্গে প্রায় ২ লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত ০৪/০২/২০১ইং রোজ বৃহস্পতিবার বৈকাল অনুমান ৪ ঘটিকায় হঠাৎ করে আব্দুল মজিদের বসত বাড়ীতে গিয়ে গনধর্ষন মামলার ১ নং পলাতক আসামী হাবিবুর রহমানের আত্নীয়রা প্রায় ১২/১৪ জন মিলে মামলা তুলে নিতে হামলা চালায়। এ সময় মদপ্য অবস্থায় আব্দুল মান্নান তার মেয়ের ওড়না ও পরোনের কাপড়-চোপড় ধরে টানা-হেচড়া শুরু করে ও বিশ্রী ধরনের গালীগালাজচর-থাপ্পর মারে। অন্যদিকে অন্যান্যরা মজিদকে এলোপাতারি ভাবে লাঠি দিয়ে মারতে শুরু করে। মজিদ তার মেয়েকে নেশাগ্রস্থের হাত থেকে রক্ষা করে ঘরের ভিতর ঢুকে দরজা লাগিয়ে দিলে, সাবল দিয়ে ঘর-দরজা ভাঙ্গার চেষ্টা করে আক্রমন কারীরা। পাশের ঘরের দরজা ভেঙ্গে সাব বাক্সের লক ভেঙ্গে গুরুত্বপুর্ণ কাগজপত্র,ও মেয়ের বিয়ের জন্য কিছুদিন পুর্বেই জমি বিক্রয়ের প্রায় ২ লক্ষ টাকা সাব বাক্সে গচ্ছিত রেখে ছিলো সে টাকাও লুটপাট করে নিয়ে যায় বলে আব্দুল মজিদ ও তার মেয়ে কান্না জড়িত কন্ঠে জানায়। স্থানীয়রা এসে, আক্রোমনকারীরা মাদক সেবী ও মাদক ব্যাবসায়ী সন্ত্রাসী ধরনের হওয়া কেহ এগিয়ে যেতে সাহস পায় নাই বলে তারা জানায়।

আব্দুল মজিদ ও তার মেয়ে জানায়, তার স্ত্রীর এতবড় সর্বনাশ করার পর থেকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য রাস্তা-ঘাটে বিভিন্ন জায়গায় আসামীগনেরা ও তাদের আত্নীয়রা মজিদকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিলো। এমত অবস্থায় তাদের মার-পিট,তার মেয়েকে শ্লীলতাহানী,ও প্রায় ২ লক্ষ টাকা চেয়ারম্যান ও মেম্বারেরা উদ্ধার করে বিষয়টি আপোষ মিমাংসার করে দেওয়ার আশ্বাস দেয়। কিন্তু অন্যদিকে আসামীরা উল্টো মজিদকে আসামী করে একটি মিথ্যা মামলা করলে চেয়ারম্যান ও স্থানীয় মেম্বার বিষয়টি মিমাংসা না করে এরিয়ে যায় বলে আব্দুল মজিদ জানায়। আব্দুল মজিদ ও তার মেয়ে এ ধরনের অন্যায়ের সুষ্ঠ বিচার বিচারের দাবী জানায়।

উল্লেখ্য,

স্থানীয়রা জানায়, অসহায় মজিদ একজন সহজ-সরল মানুষ। তার স্ত্রী সুন্দরী হওয়ায় এলাকার ৬ জন নেশাখোর মাদকসেবীরা তার স্ত্রীকে কিডন্যাপ করে ২ মাস আটকে রেখে জোর-পুর্বক ধর্ষন করে। পরবর্তীতে তার স্ত্রী সেখান থেকে পালিয়ে এসে নওগাঁ নারী শিশু আদালতে মামলা করিলে ৫ জন আসামী হাজত খেটে জমিনে বের হয়ে আঃ মজিদকে মামলা তুলে নিতে রাস্তা-ঘাটে বিভিন্ন ভাবে প্রান নাশের হুমকি-ধামকি দিতে থাকে। এদিকে ধর্ষনের ফলে একটি ছেলে শিশুর জন্ম হয়। ১ নং আসামী হাবিবুর রহমান পলাতক রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY It Host Seba