রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৯:০০ পূর্বাহ্ন

নরসিংদীর শীলমান্দীতে শিশুপুত্রকে মেঝেতে ছুঁড়ে হত্যা করলো পাষণ্ড পিতা

নরসিংদী প্রতিনিধি:

ঘুমের মধ্যে বিরক্ত করায় পাষন্ড পিতা তার এক বছর বয়সী শিশু পুত্র শুভকে খাট থেকে মেঝেতে ছুড়েঁ হত্যা করার ঘটনা ঘটিয়েছে। লোমহর্ষক এ ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল ২৭ জুলাই সোমবার বিকাল ৩টার দিকে নরসিংদী সদর উপজেলার শীলমান্দী ইউনিয়নের নগর বানিয়াদী গ্রামে। এ ঘটনায় গ্রামজুড়ে শোকের ছায়া বইছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই পিতা সুমন মিয়া (২৬) তার নিজ এলাকায় লরিতে ইট পরিবহন করার হেলপার হিসাবে কাজ করতো। এরই মধ্যে নরসিংদী মডেল থানার পুলিশ অভিযুক্ত সুমন মিয়াকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে।

পুলিশ ও শিশুটির পরিবার সদস্যরা জানান, দুপুরে খাবার খাওয়ার পর বাবা-মায়ের সাথে একই খাটে ঘুমিয়েছিল এক বছর বয়সী শুভ। হঠাৎই শিশু শুভ ঘুম থেকে জেগে প্রচণ্ড কান্নাকাটি করতে থাকে। পাশে শুয়ে থাকা শিশুটির বাবা সুমন মিয়া তা সহ্য করতে না পেরে বিরক্ত হয়ে খাট থেকে তাকে তুলে নিয়ে ঘরের মেঝেতে ছুঁড়ে ফেলেন। পরে নিজের একমাত্র সন্তানের বুকে পা দিয়ে চেপে ধরলে সাথে সাথে শিশুটির নাক মুখ দিয়ে রক্ত এসে ভেসে যায়। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায় শুভ। শিশুটির মা মিতু বেগমের চোখের সামনেই এই ঘটনা ঘটান ওই পাষণ্ড বাবা। পরে তাকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়রা জানান, সুমন মিয়া এলাকায় একজন মাদকাসক্ত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত। সে প্রায়ই স্থানীয় বখাটেদের সাথে বিভিন্ন স্থানে গাঁজা সেবন করতো। অন্যদিকে শিশুটি জন্মের পর থেকেই সবসময় অতিরিক্ত মাত্রায় কান্নাকাটি করতো। মায়ের কোল ছাড়া আর কারও কোলেই সে স্থির থাকতো না। দরিদ্র এই দম্পতির একমাত্র সন্তান ছিল শুভ।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী শাওন মিয়া নামের একজন জানান, ঘটনার পরই শিশুটির মা মিতু বেগমের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন জড়ো হয়ে যায়। ঘটনা শুনে শিশুর বাবাকে ঘরের ভেতরে রেখে বাইরে থেকে দরজার ছিটকিনি বন্ধ করে দেন স্থানীয়রা। পরে পেছনের জানালা ভেঙ্গে পালিয়ে যায় সুমন মিয়া। কিছুক্ষনের মধ্যেই এই ঘটনা মানুষের মুখে মুখে পুরো গ্রামজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। পরে সুমন মিয়া পার্শ্ববর্তী ফুলতলা বাজার এলাকায় গিয়ে পালানোর চেস্টা করলে স্থানীয় লোকজন তাকে ধরে বেঁধে ফেলেন। পরে খবর পেয়ে নরসিংদী মডেল থানার পুলিশ ফুলতলা বাজার থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এ দিকে নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক নাদিরুল আমিন জানান, আমরা শিশুটিকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজ্জামান জানান, এই ঘটনায় অভিযুক্ত সুমন মিয়াকে এরই মধ্যে আটক করা হয়েছে। অন্যদিকে নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে ওই শিশুর লাশের ময়না তদন্ত করা হয়েছে। শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত কোন অভিযোগ পেলেই আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এলাকাবাসী সুমনের দৃস্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY It Host Seba Mobile: 01625324144
Shares