রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন

পাপুলের স্ত্রী মদদে সন্তাসী সানাউল্লাহ বাহিনী বেপরোয়া

মোঃ মুক্তার হোসেন মুক্তাদি॥
লক্ষীপুর -আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রী কুমিল্লা সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা ইসলামের আশ্রয় প্রশ্রয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। আর এসবের মধ্যে মেঘনার সন্ত্রাসীদলের মধ্যে সানাউল্লাহ মিয়া, মিলন সরকার, টুটল, কাইয়ুম, নিজাম ও অন্যান্য সদস্যরাও কুয়েতে মানব ও অর্থ পাচার অভিযুক্ত সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রীকে কুমিল্লা মেঘনা উপজেলায় বহু মানুষকে বিভিন্ন ভাবে কুয়েতে জনশক্তি যোগানদেন সানাউল্লাহ মিয়া, এবং মেঘনা থানায় প্রায় পাঁচটি গ্রামের মাটি উত্তোলন করে এখন তা নদীতে পরিনত করে ।পরে এক সময় সেলিনা ইসলামের নেতৃত্বে নদীর ইজারা নেওয়া হয়, ইজারা নিয়েও থেমে নেই বালি উত্তোলন, রাতারাতি হয়ে উঠে লক্ষ, লক্ষ টাকার মালিক, এব্যাপারে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সচিব, জেলা প্রসাশন ও হাইকোর্টে রিট পিটিশন করে নিষেধাজ্ঞা এলেও কোন লাভ হয় নি, এভাবে নদী থেকে বালি উত্তোলন ও আদম ব্যবসা ও এলাকায় বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসা করে যাচ্ছে -মেঘনা উপজেলায় চালিভাঙ্গা ইউনিয়ন নলচর গ্রামের মৃত আক্কাস আলী মেম্বরে ছেলে মোঃ সানাউল্লাহ পাচটি হত্যাসহ ১৫ টি মামলা,-আব্দুল কাদের মিয়ার ছেলে কাইয়ুম -তিনটি হত্যাসহ ধর্ষন মামলা সহ ১৪ টি মামলা রয়েছে, সেলিনা ইসলামের প্রত্যক্ষ সহযোগিতার, প্রায় বলতে গেলে জোর করেই উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সদস্য হন মিলন সরকার, মেঘনা উপজেলা সহ আশপাশের উপজেলার দূর্ধষ হাবিবউল্লাহ ডাকাতের ছেলে শফিকু ইসলাম দেওয়ান সেলিনার খালাতো ভাই ওয়াসীম সানাউল্লাহ মিয়া, জাহাঙ্গীর মিলন,সরকার, নিজাম, কাইয়ুম এরা সেলিনার ক্যাডার হয়ে চালায় মেঘনা উপজেলা ত্রাসের রাজত্ব, সন্ত্রাসীদের কবলে হারিয়ে গেল গ্রামের ৩০০ একর জমি যার বাজার মূল্য ৭০০ কোটির ও বেশি টাকা চলছে আদম ব্যবসা রমরমা চালিভাঙ্গা গ্রামে সদর আলীর ছেলেকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা, ফরাজি কান্দি গ্রামের আনোয়ারকে খুন ও তার স্ত্রী কে ধর্ষণ, চালিভাঙ্গা ইউনিয়ন ওসমান আলীর ছেলে মনসুরকে কুপিয়ে হত্যা, চন্দনপুর ইউনিয়ন কাচের কান্দি গ্রামের মোঃ মোহসীনের স্ত্রী মুক্তাকে বাড়িতে ঢুকে ধর্ষণ করে এভাবে হাজারও অপকর্ম ও ক্ষমতার দাপটে চলছে মেঘনার মানুষের জীবন।।।

আর্তনাদ ও বিপাকে সাধারণ মানুষ, এবেপারে আশেপাশে সব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতারা ও আতংকে থাকে বলে জানিয়েছেন অন্য দিগন্ত পত্রিকাকে। (চলবে)

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY It Host Seba Mobile: 01625324144
Shares