রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন

প্রয়োজন যাদের তারা খুশিমনে নিয়ে যান, যাদের সামর্থ্য আছে ভালবেসে দিয়ে যান

স্টাফ রিপোর্টার॥
প্রয়োজন যাদের তারা খুশিমনে নিয়ে যান, যাদের সামর্থ্য আছে ভালবেসে দিয়ে যান এই স্লোগানের ওপর ভিত্তি করে ‘আর্তের আহ্বানে’ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মোঃ জিহাদুর রাহমান একটি ছোট্ট উদ্যোগ গ্রহণ করেন এবং তা হল ‘খুশির হাট’।
করোনার আক্রমণে সারা বিশ্ব আজ বিপর্যস্ত। ক্ষুধার জ্বালায় নিপতিত মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত, দরিদ্র, অসহায় শ্রেনিপেশার মানুষ। এমন সংকটে এককালীন সাহায্য কখোনি যথেষ্ট নয়। প্রয়োজন সামগ্রিকভাবে যে যার অবস্থান থেকে এগিয়ে এসে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। মানুষের এই ক্ষুধার জ্বালা নিবারনের ছোট্ট একটি প্রচেষ্টা হলো এই খুশির হাট।
‘খুশির হাট’ আসলে কি?

এলাকার তরুণ সমাজ কিংবা সামাজিক সংগঠনের মাধ্যমে গড়ে উঠবে এই ‘খুশির হাট’। এলাকার দোকান গুলোতে একটি করে খুশির হাট নামক ঝুড়ি বা বক্স রাখা হবে।সামর্থ্যবানরা ভালোবেসে তাদের ক্রয়কৃত পন্য থেকে খুশির হাটে কিছু অংশ রেখে যাবে; যাদের প্রয়োজন তারা খুশির হাট থেকে প্রয়োজনীয় পন্য নিয়ে যাবে। ‘আর্তের আহ্বানে’ ছোট পরিসরে কয়েকটি স্থানে “খুশির হাট” স্থাপন করেছে যা চলমান। ‘আর্তের আহ্বানে’ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মোঃ জিহাদুর রাহমান বলেন “আমাদের উদ্দ্যেশ্য দেশের সর্বত্র এই “খুশির হাট” ছড়িয়ে দেয়া এবং যে কেউ যুক্ত হতে পারেন তাদের সাথে অথবা নিজ উদ্যোগে করতে পারেন একটি খুশির হাট।

‘খুশির হাট’ প্রকল্পটির ইভেন্ট লিংকঃhttps://web.facebook.com/events/s/%E0%A6%96%E0%A6%B6%E0%A6%B0-%E0%A6%B9%E0%A6%9F/331640497855560/?ti=cl&_rdc=1&_rdr

গ্রুপ লিংকঃhttps://web.facebook.com/groups/263278921400161/
খুশির হাট প্রকল্প টি হাতে নেওয়ার উদ্দেশ্য হলো স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করার পাশাপাশি অভাবগ্রস্ত মানুষ জন যেন যেকোনো সময় ভীড় এড়িয়ে নির্দ্বিধায়, বিনা সংকোচে সহায়তা নিতে পারে।
যতদিন না কাটে করোনার রেশ,
বেচে থাকুক সোনার বাংলাদেশ।
“আর্তের আহ্বানে” সংগঠনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ লিংকঃ://www.facebook.com/ArterAhobane/
প্রয়োজন যাদের তারা খুশিমনে নিয়ে যান,
যাদের সামর্থ্য আছে ভালবেসে দিয়ে যান এই আহ্বান যেন সারা দেশে ছড়িয়ে পরে সে প্রত্যাশা সচেতন মহলের দেশে অনেক বিত্তবান রয়েছে তারাও এই থরনের মহৎ চিন্তা করেনী যা করেছে এই ছেলেগুলো শুভকামনা রইল অন্যদিগন্ত পত্রিকার পক্ষ থেকে॥

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY It Host Seba Mobile: 01625324144
Shares