গাড়ি ধীরগতিতে চললেও তীব্র জানজট নেই | অন্যদিগন্ত

শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ১২:৪২ অপরাহ্ন

গাড়ি ধীরগতিতে চললেও তীব্র জানজট নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

ঈদ যাত্রায় গাড়ি ধীরগতিতে চললেও, মহাসড়কে তীব্র যানজট নেই বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর মহাখালী বাস টার্মিনাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

ঈদে ঘরমুখো মানুষের কাছ থেকে বিভিন্ন পরিবহনের বাড়তি ভাড়া আদায় প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, কোনো যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করার সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে আমাদের কাছে দিন। আমাদের মনিটরিং টিম কাজ করছে। আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

গতকাল (শুক্রবার, ৯ আগস্ট) পর্যন্ত বেশ কয়েকজনকে এই অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। জনসাধারণকেও বলবো, বাড়তি ভাড়ার বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে।

সড়ক পরিস্থিতি নিয়ে মন্ত্রী বলেন, মহাসড়কে যানজট হচ্ছে পশুবাহী গাড়ি ও ভারী বৃষ্টির কারণে। টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত ধীরগতির ফলে যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছেন। ঘরমুখো মানুষের বাড়ি পৌঁছাতে কোথাও কোথাও সমস্যা হচ্ছে। আজও ধীরগতি আছে। তবে তীব্র যানজট নেই।

ঈদে প্রচুর লোক বাড়ি যাচ্ছে। মহাসড়কগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম ও সিলেট মহাসড়কে যাতায়াতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) পর্যবেক্ষণ সেল থেকে এ তথ্য জেনেছি।

বেশি সমস্যা হচ্ছে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে উত্তরাঞ্চলগামী যানবাহনগুলোর ক্ষেত্রে। এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপারে কড্ডা মোড় পর্যন্ত গাড়ি খুব ধীরগতিতে চলছে। মহাসড়কে ধীরগতির কিছু বাহন চলছে।

তিনি আরও বলেন, মহাসড়কে নিয়মিত চলাচল করে না—এমন গাড়িও ঈদে নেমে পড়েছে। মহাসড়কে উঠে এগুলোর ইঞ্জিনের স্টার্ট বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, দুর্ঘটনায় পড়ছে। দুর্ঘটনাকবলিত গাড়িগুলো সরানো পর্যন্ত অন্য যানবাহনের গতি কমে আসছে।

সেতুমন্ত্রী দাবি করেন, এবার রাস্তায় কোথাও ভাঙাচোরা নেই। সেসব মেরামত করা হয়েছে। বাস র‍্যাপিড ট্রানজিটের (বিআরটি) কাজ চলায়, সেদিকে সমস্যা হওয়ার কথা ছিল। তবে যত সমস্যা হবে বলে মনে করা হয়েছিল, তার চেয়ে অনেক কম হচ্ছে।

ফেরিঘাটে ভোগান্তির বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বৃষ্টি ও নদীতে স্রোতের কারণে ফেরি পারাপারে দেরি হচ্ছে। এ কারণে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ফেরিঘাটগুলোয় সমস্যা হচ্ছে।

বিভিন্ন পরিবহনের বাড়তি ভাড়া আদায় প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, কোনো যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করার সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে আমাদের কাছে দিন। আমাদের মনিটরিং টিম কাজ করছে। আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব এনায়েতুল্লাহ, বিআরটিএ চেয়ারম্যান মো. মশিয়ার রহমানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY Seskhobor.Com
Shares
CrestaProject