ভেলায় কোর্টের নিয়োগকৃত উকিল কমিশনের উপর কসাই গংদের হামলা গ্রেফতার-১ | অন্যদিগন্ত

বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৯ পূর্বাহ্ন

ভেলায় কোর্টের নিয়োগকৃত উকিল কমিশনের উপর কসাই গংদের হামলা গ্রেফতার-১

ভোলার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের আদেশ পালন করতে গিয়ে জজ কোর্টের নিয়োগপ্রাপ্ত দেওয়ানী ও ফৌজদারি ভোলার সার্ভে কমিশনার এডভোকেট মোহাম্মদ জিয়াউর রহমানের উপর হামলা করেছে চরনেওয়াবাদের স্বীকৃত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজরা। হামলায় মদদ দেয়া সন্ত্রাসী গ্রুপের লিডারকে তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করেছে ভোলা থানার ওসি ছগির মিয়।

২৩আগস্ট শুক্রবার দুপুর ২:৩০মিনিটের সময় ভোলার দক্ষিন চরনেবাদের ৮নং ওয়ার্ডে দেওয়ানী মাম্লার (১৯২/১৪)যার order 26 rule 13 আদেশ অনুযায়ী মামলার বাদী পক্ষের শাহানুর বেগম এবং বাদীপক্ষের কৌসুলী জামাল উদ্দিনসহ ভোলা সিনিয়র জজ আদালতের মামলার রায়ের আদেশ কার্যকর করতে বাদী পক্ষের জমির দখল বুঝিয়ে দিতে দায়িত্বপালন অবস্থায় বিবাদীদের হামলার স্বীকার হয়েছেন ভোলার জজ কোর্টের নিযুক্ত সার্ভে কমিশনার এডভোকেট মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান।
বর্তমানে তিনি ভোলা সদর হাসপাতালে সার্জারি ওয়ার্ডে (৮নং বেডে) চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এসময় হামলার ঘটনা বর্ননা করে আহত জিয়াউর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, আমি ভোলার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের একটি আদেশের পরিপেক্ষিতে,একজন নিয়োগপ্রাপ্ত সার্ভেয়ারের উপর বিজ্ঞ আদালতের অর্পিত দায়িত্ব পালনকালে ঘটনাস্থলে যাইএবং বিজ্ঞ আদালতের রায়ের আদেশের কপি সহকারে বাদী ও বিবাদী উভয়পক্ষকে তাহা অবহিত করে, আদেশ অনুযায়ী বাদী পক্ষের জমিটি তাহার দখলে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্যে সম্পুন্ন নিরপেক্ষ ভুমিকা পালন করে দায়িত্বরত অবস্থায় কার্যক্রম পালন করি।
হঠাৎ করেই বিবাদী পক্ষের ছালেম কসাই পিতা,মৃত মোতাহার হোসেন,সুলতান আহমেদ,আক্রাম হোসেন পিতা,সুলতান আহমেদ,ছাব্বির হোসেন,বাচ্চু,মাকসুদ হোসেন,মোসাম্মৎ ছালেমা খাতুন,আমেনা বেগম, লাইজু বেগম,এবং মুক্তা অতর্কিতভাবে তাহার উপর দেশিয় ধারালো অস্র এবং লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালান। আহত এই সার্ভেয়ার আরো বলেন,তারা শুধু আমাকে আহত করা নয়, তারা বিজ্ঞ আদালতের আদেশের রায়কেও অবমাননা করে অন্যায়ভাবে তাহার উপর সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালায় বলেও জানান তিনি। পরে একপর্যায় নিজের প্রান রক্ষার্থে আহত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয় জনতার সহোযোগিতায় তিনি প্রানে বেচে যান এবং স্থানীীয়রা তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন বলেও জানান তিনি।
এদিকে ভোলা সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাহার অবস্থার অবনতি দেখে তাহাকে দ্রুত চিকিৎসা প্রধান করেন।

আহত জজ কোর্টের সার্ভে কমিশনার এডভোকেট জিয়াউর রহমানের বাম পায়ে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর আঘাতের ফলে চিকিৎসক তাহার সুচিকিৎসায় দিতে ভর্তি রাখাত পরামর্শ দেন বলে জানা যায়।

এদিকে জজকোটের সার্ভে কমিশনার ও এডভোকেট জিয়াউর রহমানের উপর হামলার ঘটনায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ ক্ষোভ জানিয়েছেন ভোলা জেলা আইনজীবী সমিতিসহ ভোলা বারের সকল আইনজীবী পরিষদের সদস্যগনসহ বিভিন্ন আইনজীবী সংগঠনের নেতারা এসময় তারা সকল অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানায়।

উক্ত ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে ছালেম কসাই গংদের ঘটনার সত্যতা জানতে মোবাইল ফোনে বা ঘটনাস্থলে গিয়েও তাদের কাউকে পাওয়া পাওয়া যায়নি।

এ’ব্যাপারে ভোলা সদর থানার ওসি ছগির মিয়া সাংনাদিকদের জানান,উক্ত ঘটনার অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সুলতান আহমেদকে আটক করতে সক্ষম হয়েছেন এবং হামলার ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা ভোলা থানায় প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media


কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY Seskhobor.Com
Shares
CrestaProject