সাদুল্লাপুরে সহকারি শিক্ষককে মারধর : প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি অবরুদ্ধ | অন্যদিগন্ত

বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ০১:০৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে এসেছে, দাবি শিল্পমন্ত্রীর  নারায়ণগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুলের সীমানা প্রাচীর ধসে প্রাণ হানির আতঙ্কে ৩ হাজার মানুষ লালমনিরহাট সদর উপজেলায় স্কুল ছাত্রীকে ৫দিন আটকে রেখে গনধর্ষণ ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সিনেমা ফিরিয়ে দিলেন পরিণীতি ট্রেন দুর্ঘটনায় আহত শিশুটির পরিচয় মিলেছে, নিখোঁজ মা-দাদি বসুন্ধরা পেপারের লেনদেন পূর্ব ৬৯ কোটি টাকার মুনাফা নামল ২৯ কোটিতে ইডেনের ইনডোর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শোক কসবার ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৬, তদন্ত কমিটি শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে রাঙ্গার আপত্তিকর মন্তব্যে প্রতিবাদে ফুসে উঠেছে রংপুরের যুবলীগ

সাদুল্লাপুরে সহকারি শিক্ষককে মারধর : প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি অবরুদ্ধ

সঞ্জয় সাহা (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি ॥

গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার কান্তনগর বিনয় ভূষণ বহুমমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রেজা শাহজাহানকে মারধর করেছেন বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক একরামুল ইসলাম ও সভাপতি রওশান আলম। এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিকে স্কুলকক্ষে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে তাদের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করেন তারা।

জানা যায়, বুধবার (২৮ আগস্ট) বিদ্যালয়ের দাপ্তরিক কাজের জেরে প্রধান শিক্ষক একরামুল ইসলাম ও সভাপতি রওশান আলম ক্ষিপ্ত হয়ে সহকারি শিক্ষককে মারপিট করে। এ নিয়ে এলাকায় শুরু হয় নানা আলোচনা-সমালোচনা।

এদিকে পরদিন বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) সকালে স্কুল চলাকালীন সময় অভিভাক ও শিক্ষাথীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। এক পযায়ে ওই প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিকে স্কুলকক্ষে অবরুদ্ধ করে তারা। এরপর তাদের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করা হয়। এসময় উত্তপ্ত অবস্থার সৃষ্টি হলে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনায় সাদুল্লাপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাহারিয়া খান বিপ্লব, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. নবীনেওয়াজ ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সৈয়দ মনিরুল হাসান বিষয়টি সমাধানের জন্য উভয়পক্ষকে নিয়ে সমাধানের জন্য বসেন। এতে উভয়ের ভুল বোঝাবুঝি স্বীকারোক্তি দিয়ে দ্বন্দ্বটি নিরসন করা হয়।

অপরদিকে প্রশাসন মহল বিষয়টি সমাধা করে দিলেও অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা ওই সভাপতি রওশন আলম ও প্রধান শিক্ষক একরামুলের অপসারণের দাবি জানায়।

এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাহারিয়া খান বিপ্লব আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগামী ছয় মাসের মধ্যে বিদ্যালয়ের এডহক কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন কমিটি গঠন করা হবে। চেয়ারম্যানের এমন আশ্বাসে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media


কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY Seskhobor.Com
Shares
CrestaProject