মেহেরপুরে দুই মাছ চাষিকে বিলের মধ্যে কুপিয়ে হত্যা | অন্যদিগন্ত

বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:৫২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
প্রকৃ‌তিক দূ‌র্যো‌গে নয়, সরকারী ঘু‌র্ণিঝ‌রে নি‌শ্চিন্ন দিনাজপু‌রের বিরামপুর লালমনিরহাটে ৪০১ বোতল ফেন্সিডিল আটক,পলাতক মুলহোতা ফারুক একই উপ‌জেলায় ২ জন ইউ‌পি চেয়ারম্যান,একজন স্বর্ন পদক অন্য জন মহাত্নাগান্ধী পদক, তবুও অন্যায় কেন ? বড় ভাই প্রধানমন্ত্রী, ছোট ভাই প্রেসিডেন্ট শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত, যান চলাচল শুরু দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় রাজধানী মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে চলছে পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘট লবণের দাম বৃদ্ধি!গুজবে আটক ১৩৩। গুজবে কান না দেওয়ার জন্য আহবান মন্ত্রণালয়ের চাল ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে যা বললেন খাদ্যমন্ত্রী 

মেহেরপুরে দুই মাছ চাষিকে বিলের মধ্যে কুপিয়ে হত্যা

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥

মেহেরপুর সদর উপজেলার নতুন দরবেশপুর গ্রামের শৈলমারী বিলে দুই মাছ চাষিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১১টার পর এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন দরবেশপুর গ্রামের মৃত ইদ্রিস আলী মাস্টারের ছেলে রোকনুজ্জামান (৩৬) ও আজাদ আলী বিশ্বাসের ছেলে হাসান আলী (৪২)। তারা সম্পর্কে চাচাতো ভাই।

মেহেরপুর পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলী জানান, প্রতি রাতের মতো গত রাতেও বিল পাহারা দিতে যান রোকন ও হাসান। এ সময় ১০/১২ জন অস্ত্রধারী তাদের ওপর হামলা চালায়। পরে তাদের দুই জনকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন দুই ভাই। খবর পেয়ে তিনি নিজে সদর থানা ও ডিবি পুলিশের দুটি দল সহ ঘটনাস্থলে যান। ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশের সারা শরীর এলোপাতাড়ি কোপানো রয়েছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে। এর সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত চিহ্নিত করা হবে বলেও তিনি জানান।

এসপি আরও জানান, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে নেওয়া হয়েছে। সদর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এলাকাবাসী জানান, রোকন ও হাসানের বাড়ির পাশেই শৈলমারি বিল। সরকারি এই বিল ইজারা নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে মাছ চাষ করে আসছেন তারা। রোকন ও হাসান আলী সঙ্গে কয়েকজন লোক নিয়ে প্রতি রাতেই পাহারা দেন। তবে আসলে কী কারণে ও কারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা এখনই ধারণা করতে পারছেন না পরিবার ও পুলিশ।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media


কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY Seskhobor.Com
Shares
CrestaProject