বিজিবির সঙ্গে 'বন্ধুকযুদ্ধ ২ ইয়াবা পাচারকারী নিহত | অন্যদিগন্ত

বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে এসেছে, দাবি শিল্পমন্ত্রীর  নারায়ণগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুলের সীমানা প্রাচীর ধসে প্রাণ হানির আতঙ্কে ৩ হাজার মানুষ লালমনিরহাট সদর উপজেলায় স্কুল ছাত্রীকে ৫দিন আটকে রেখে গনধর্ষণ ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সিনেমা ফিরিয়ে দিলেন পরিণীতি ট্রেন দুর্ঘটনায় আহত শিশুটির পরিচয় মিলেছে, নিখোঁজ মা-দাদি বসুন্ধরা পেপারের লেনদেন পূর্ব ৬৯ কোটি টাকার মুনাফা নামল ২৯ কোটিতে ইডেনের ইনডোর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শোক কসবার ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৬, তদন্ত কমিটি শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে রাঙ্গার আপত্তিকর মন্তব্যে প্রতিবাদে ফুসে উঠেছে রংপুরের যুবলীগ

বিজিবির সঙ্গে ‘বন্ধুকযুদ্ধ ২ ইয়াবা পাচারকারী নিহত

সাহেদুল ইসলাম সাগর চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান॥
টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ইয়াবা পাচারকারীদের ‘গুলিবিনিময়’ হয়েছে। এ সময় দুই পাচারকারী গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ৫০ হাজার ইয়াবা, ২টি অগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে বিজিবি। আজ ভোররাতে টেকনাফের হ্নীলার দক্ষিণ দমদমিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিজিবি সূত্র জানায়, হ্নীলা ইউনিয়নের দক্ষিণ দমদমিয়া এলাকা দিয়ে ইয়াবা পাচারের গোপন সংবাদ পেয়ে বিজিবির একটি বিশেষ টহলদল সেখানে কৌশলগত অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারীদের চারদিক থেকে ঘিরে আত্মসমর্পণের জন্য বলা হয়। কিন্তু তারা আত্মসমর্পণ না করে অতর্কিত এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে থাকে। এ সময় বিজিবি’র তিনজন সদস্য আহত হন।

আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে উভয়পক্ষের মধ্যে প্রায় ১০-১২ মিনিট গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে ঘটনাস্থল তল্লাশি চালিয়ে ২ ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে তাদেরকে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে পৌঁছার পর চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতদের মানিব্যাগের ছবিতে মো. জামাল (২৭) ও মোহাম্মদ ইউনুছ (২১) নাম পাওয়া গেলেও এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পিতার নাম ও ঠিকানা পাওয়া যায়নি।

এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে দেড় কোটি টাকা মূল্যে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা, দেশীয় তৈরী ২টি বন্দুক, ৩ টি তাজা কার্তুজ, ২ টি ধারালো কিরিচ উদ্ধার করতে সক্ষম হয় বিজিবি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ ২ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. ফয়সাল হাসান খান জানান, টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে মাদক পাচারকারী চক্র ফের বেপরোয়া হওয়ার চেষ্টা করছে। মাদক নির্মূলে সরকার জিরো টলারেন্স। কোন অবস্থায় মাদক পাচারে জড়িত অপরাধীদের রেহাই নেই।

তাদের অপচেষ্টা প্রতিরোধ করার জন্য সীমান্ত প্রহরী বিজিবি জওয়ানরা সদা প্রস্তুত রয়েছে। সীমান্তে মাদক পাচারকারী ও চোরাচালান রোধে বিজিবির অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান এই বিজিবি কর্মকর্তা।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media


কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY Seskhobor.Com
Shares
CrestaProject