সেবা গ্রহীতাদের সেবা দিতে বাধ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান- দুদক কমিশনার অামিনুল ইসলাম | অন্যদিগন্ত

সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:১২ পূর্বাহ্ন

সেবা গ্রহীতাদের সেবা দিতে বাধ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান- দুদক কমিশনার অামিনুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক;
রাষ্ট্রের সেবা দানকারী যে কোন প্রকার প্রতিষ্ঠান জনগনের ভোগান্তি তৈরী করতে পারবে না। সেবা গ্রহীতা ও রাষ্ট্রের নাগরিকদের সঠিক সময়ে সঠিক সেবা প্রদান করা সরকারী প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের দায়িত্ব। সেবা গ্রহীতারা যেন কোন ভাবেই হয়রানীর স্বীকার না হয় সেদিকে সকলকে খেয়াল রাখতে হবে। দুর্নীতি প্রতিরোধে সাধারণ জনগনকে সৎ সাহস নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। ‘এবার অাওয়াজ তুলুন’ শিরনামে “দেশ প্রেমের শপথ নিন দুর্নীতিকে বিদায় দিন” এমন সব স্লোগানে সাধারণ জনগনের সরাসরি অভিযোগ নিয়ে দুদক কুমিল্লার অায়োজনে সদর উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স হলে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দুদক কমিশনার (তদন্ত) এ, এফ,এম অামিনুল ইসলাম এসব কথা বলেন। তিনি অারো বলেন, দুদক অপরাধ রোধ ও অপরাধী ধরা দুই ক্ষেত্রেই কাজ করে। দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিনত করতে বর্তমান সরকারের দুর্নীতি বিরোধী কঠোর অবস্থানের কথাও তুলে ধরেন তিনি। দুদককে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে তথ্য প্রমান দিয়ে সহযোগিতার জন্য সাংবাদিক সহ সকলের প্রতি অাহবান জানান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে রাখেন দুদক চট্টগ্রাম এর পরিচালক মাহমুদুল হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার) পিপিএম, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি প্রফেসর অামীর অালী চৌধুরী। অনুষ্ঠানে মডারেটর এর দায়িত্ব পালন করেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ অাবুল ফজল মীর। বক্তব্যের শেষে শুরু হয় গণশুনানী। গণশুনানীতে অভিযোগকারীরা বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন, এসময় বিভিন্ন দপ্তরের দায়িত্বশীল উপস্থিত কর্মকর্তারা তাৎক্ষনিক ভাবে সমাধানের চেষ্টা করেন এবং কিছু অভিযোগ দুদক তদন্তের নির্দেশ দেন। গণশুনানীর শুরুতে কুমিল্লা নগরীর ঐতিহাসিক বাগিচাগাঁও বড় মসজিদের দানের অর্থ দূর্নীতি ও ওয়াকফকৃত জমি বিক্রির বিষয়ে একজন অভিযোগ করলে তাৎক্ষণিকভাবে এসিল্যন্ডকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করা হয় । মিটারে সংযোগ না থাকা সত্বেও বিদ্যুৎ বিল অাসাসহ ভূতুরে বিল ও মিটার না দেখে মনগড়া রিডিংয়ে বিল প্রদানের অভিযোগ আনেন একাধিক বিদুৎ গ্রাহক। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে খাবারের নিম্নমান, ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি দ্বারা রোগী হয়রানী, গাইনী ওয়ার্ডে এম্বুলেন্সের ড্রাইভার ও পুরুষদের গভিররাতে অবাধ যাতায়াত, রোগীদের বিরক্তির কারন সহ সহ নানান অভিযোগ অানা হয় এসময়। কুমিল্লার বিভিন্ন সড়ক মহাসড়কের ইজারা বিহীন টোল ও চাঁদা আদায় ও যাত্রী হয়রানির অভিযোগ করা হয়। এছাড়াও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় অভিযোগ অানা হয় এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কুমিল্লা সদরের অালেকজান মেমোরিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের লাইব্রেরীয়ান সহকারী নাসরিন অাক্তারের বিরুদ্ধে। ১৯৯৫ সালে চাকুরীতে যোগদান করার পর থেকেই কর্মস্থলে না এসে নিয়মিত অনুপস্থিত থাকা। শিক্ষক ও জনবল সল্পতা ও সংকট সত্বেও ঢাকায় বসবাস করে শিক্ষাঙ্গনের সভাপতির নিকটাত্মীয় হিসেবে ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে হাজিরা খাতায় উপস্থিতির স্বাক্ষর করা। এবং দুই যুগ ধরে নিয়মিত বেতন বোনাস ও ভাতা উত্তোলন করা। অনুপস্থিতিতে অন্য শিক্ষক দ্বারা নিয়মিত হাজিরা খাতায় জাল স্বাক্ষর করা সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ। অভিযোগের সত্যতা জাচাইয়ে হাজিরা খাতা ও কলেজ অধ্যক্ষ অাব্দুল মান্নানকে হাজির করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযোগের সত্যতা স্বীকার ও তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় দুদক কে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।
সরাসরি জনগণ তাদের অভিযোগ করতে পেরে এবং সমস্যা সমাধানে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহনের নির্দেশনা পাওয়ায় অায়োজকদের আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এমন আয়োজন বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় অব্যাহত রাখতে জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন ও দুদক সহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান গনশুনানীতে অংশ গ্রহনকারীরা।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media


কপিরাইটঃ ২০১৬ দৈনিক অন্যদিগন্ত এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY Seskhobor.Com
Shares
CrestaProject